Tips, tutorials, and techniques for the modern Freelancer.
#36
  • শিক্ষার সুযোগ বাড়ানো প্রয়োজনঃ
    আপনি যখন অনলাইনে কোন কাজের জন্য প্রতিযোগিতা করছেন তখন একই চেষ্টা করছে সারা বিশ্বের মানুষ। সমস্ত বিশ্বই আপনার প্রতিদ্বন্দি। যার দক্ষতা বেশি তিনি প্রতিদ্বন্দিতায় জিতবেন এটাই স্বাভাবিক। এদিক থেকে বাংলাদেশ অনেক পিছিয়ে।

    কারনটাও সহজে অনুমেয়। আপনি একজন গ্রাফিক ডিজাইনারের সাথে প্রতিযোগিতায় নেমেছেন যিনি সেই বিষয়ে গ্রাজুয়েট। আপনার গ্রাফিক ডিজাইন বিষয়ে পড়ার সুযোগ নেই। সরাসরি কাজে লাগাতে পারেন এমন কোন বিষয়েই পড়ার সুযোগ নেই। গ্রাফিক ডিজাইন, এনিমেশন, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট ইত্যাদি যে বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠ্য বিষয় হয় এই ধারনাই তৈরী হয়নি।

    বিকল্প পথ থাকে বেসরকারী ট্রেনিং সেন্টার। এখানে সমস্যা ভিনড়ব ধরনের। আমেরিকায় এনিমেশন বিষয়ে ৬ মাসের প্রফেশনাল ডিপ্লোমা কোর্সের খরচ কয়েক হাজার ডলার থেকে লক্ষ ডলার পর্যন্ত। এই কোর্স করলে আপনি সরাসরি কাজের জন্য তৈরী হতে পারেন। কারন যারা প্রশিক্ষন দেন তারা নিজেরা পেশাদার। কাজের জন্য যাকিছু প্রয়োজন সবই তারা শেখান।

    বাংলাদেশে সমস্য দুদিকে, প্রথমত বিপুল পরিমান অর্থ ব্যয় করার সামর্থ্য অনেকের নেই। অন্যদিকে টাকা দিয়ে কোর্স করলেও আপনাকে উপযুক্ত শিক্ষা দেয়া হবে, কিংবা আপনি শিখবেন এই নিশ্চয়তা নেই। বাংলাদেশের শিক্ষা অনেকটাই সার্টিফিকেট এবং ব্যবসা নির্ভর। যার টাকা আছে তিনিই ভর্তি হবেন, বিষয়টি তারজন্য মানানসই কিনা যাচাই করা হবে না। একসময় হাতে সার্টিফিকেট ধরিয়ে দেয়া হবে। শিক্ষার্থীর মানষিকতাও সেভাবে গড়ে ওঠে। সার্টিফিকেট হাতে পেয়ে নিজেকে যোগ্য ধরে নেন। অথচ এধরনের শিক্ষার জন্য প্রয়োজন কাজকে গুরুত্ব দেয়া। সত্যিকারের বিশেষজ্ঞদের তত্ত¡াবধানে বাস্তব কাজ শেখা। কোথায় পড়েছেন বা কি শিখেছেন এপ্রশড়ব না করে প্রশড়ব করা প্রয়োজন ছিল কোন কাজ সবচেয়ে ভালভাবে করতে পারেন। সেটা করে দেখান। এধরনের পেশাদারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হঠাৎ করে গড়ে ওঠে না। শুরুটা এখনই হওয়া প্রয়োজন।

একটু সামান্য অভিজ্ঞতা আপনাকে শিখিয়ে দেবে যে ফ্রিল[…]

যাঁরা প্রচলিত অফিস বাদ দিয়ে ঘরে বসে ফ্রিল্যান্সিং[…]