Tips, tutorials, and techniques for the modern Freelancer.
#33
ঘরে বসে সহজে আয়, এধরনের প্রচারনার সময় বলা হয় একটি কম্পিউটার থাকাই যথেস্ট। কেউ কেউ আরো একধাপ পেরিয়ে বলেন, ঘরও প্রয়োজন নেই, যখন বেড়াতে যাবেন তখনও আয় করতে পারেন (যদি সাথে ল্যাপটপ থাকে)। কেউ বলেন মোবাইল ফোনে আয় করতে পারেন যে কোন যায়গা থেকে, যখন খুশি তখন।

বাস্তবতা সেকথা বলে না। যদি সত্যিকারের আয় করতে হয় তাহলে সেজন্য নির্দিস্ট পরিকল্পনা থাকতে হয়, নির্দিস্ট সময় বরাদ্দ করতে হয়, নির্দিষ্ট নিয়মে কাজ করতে হয়, নির্দিষ্ট কাজের যায়গাও ঠিক করতে হয়। তারচেয়েও বড় কথা, নির্দিষ্ট কিছু সুবিধে প্রয়োজন হয়। এমন কিছু যা ইচ্ছে করলেই পাওয়া যায় না। বিদ্যুত, ইন্টারনেট ইত্যাদি আপনি ইচ্ছে করলেই ব্যবস্থা করে নিতে পারেন না।

ইন্টারনেট থেকে আয়ের জন্য যে বিষয়গুলি প্রয়োজন সেগুলি মোটামুটি এমন;

  • নির্ভরযোগ্য ইন্টারনেট সংযোগ প্রয়োজনঃ
    আপনি যোগাযোগ করবেন ইন্টারনেটের মাধ্যমে। হয়ত সারাদিনই ইন্টারনেট ব্যবহার করা প্রয়োজন। এজন্য উনড়বতমানের ইন্টারনেট সংযোগ থাকতে হবে। আউটসোর্সিং কিংবা তথ্যপ্রযুক্তি কিংবা ডিজিটাল বাংলাদেশ যত কথাই বলা হোক, ইন্টারনেট ব্যবস্থার উনড়বতি করা হয়নি। অনেক ঢাকঢোল পিটিয়ে ওয়াইম্যাক্স চালু করা হয়েছে (অনেকের ভাষায় ৪জি, যদিও ৪জি নামে পৃথক আরেকটি প্রযুক্তি রয়েছে), খোদ ঢাকা শহরে ওয়াইম্যাক্স নেটওয়ার্ক পাওয়া যায় না। সম্প্রতি থ্রিজি চালু করা হয়েছে সরকার নিয়ন্ত্রিত মোবাইল অপারেটরের মাধ্যমে। অনেকের অভিযোগ (এবং নিজের অভিজ্ঞতা) তাদের মোবাইল ফোনের নেটওয়ার্কও ঠিকমত কাজ করে না। আপনি ইচ্ছে করলেই এই ব্যবস্থায় পরিবর্তন আনতে পারেন না। কিন্তু এটা যখন আপনার পেশার সাথে জড়িত তখন দাবী জানানো আপনার কর্তব্য।
  • ইন্টারনেট সহজলভ্য হওয়া প্রয়োজনঃ
    বাংলাদেশে ইন্টারনেটের খরচ অত্যন্ত বেশি। মোবাইল অপারেটর গর্ব করে বিজ্ঞাপন দেয় ১০ মেগাবাইট ১০ টাকা, অর্থাৎ প্রতি মেগাবাইট ১ টাকা। এই খরচে অনলাইনে আয় করতে হলে অনেক সময় আয়ের টাকার পুরোটাই ইন্টারনেট বিল দিতে চলে যাবে। ভুলে যাবেন না কখনো কখনো অনেক বড় ফাইল আপলোড-ডাউনলোড করা প্রয়োজন হতে পারে। ফটোশপে তৈরী বড় একটি বিলবোর্ড ডিজাইন কয়েকশত মেগাবাইট পর্যন্ত হতে পারে।

    আনলিমিটেড নামে যে সংযোগ দেয়া হয় তার লিমিট ১ গিগাবাইট কিংবা ৫ গিগাবাইট। যদিও নাম আনলিমিটেড। এবিষয়ে সরকারের বক্তব্য, তারা ব্যান্ডউইডথ এর দাম কমিয়েছেন। আইএসপিগুলি দাম কমাচ্ছে না, ব্যান্ডউইডথ পুরো ব্যবহার করছে না। এটুকু ব্যাখ্যা দিয়েই সরকার চুপ। ব্যবসায়ীদের এরকম আচরনের কারনটা সহজেই অনুমেয়। কেউ কেউ আগ বাড়িয়ে বলেন কতভাবে প্রতারনা করা যায় যদি শিখতে চান বাংলাদেশের মোবাইল অপারেটরদের প্রচারনা দেখুন।

    এককভাবে ব্যবহারের সময় আপনি এই ব্যবস্থা মেনে নিতে পারেন কিন্তু যখন আউটসোর্সিং এর সাথে দেশের বিপুল সংখ্যক মানুষের সম্পৃক্ততার কথা বলা হচ্ছে তখন এই ব্যবস্থার পরিবর্তন প্রয়োজন।

একটু সামান্য অভিজ্ঞতা আপনাকে শিখিয়ে দেবে যে ফ্রিল[…]

যাঁরা প্রচলিত অফিস বাদ দিয়ে ঘরে বসে ফ্রিল্যান্সিং[…]